ছাত্রলীগকর্মী হিসেবে নয়, ব্যক্তিগতভাবে দুঃখ প্রকাশ

অনলাইন ডেস্ক: ছাত্র অধিকার পরিষদের দু’নেতাকে মারধরের ঘটনায় ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে নয় বরং ব্যক্তিগতভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে অভিযুক্ত ছয় শিক্ষার্থী।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (ডুজা) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করে এই তথ্য জানান তারা। এর আগে সোমবার দুপুরে ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীদের সাথে তাদের সমঝোতা হয়।

অভিযুক্তদের দাবি, তারা ব্যক্তিগতভাবে ক্ষমা চাইলেও কিছু নিউজ পোর্টাল ও পত্রিকা তা ছাত্রলীগের ক্ষমাপ্রার্থনা হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা-কর্মীদের সাথে ঘটে যাওয়া অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিতে তারা দুঃখ প্রকাশ করেন এবং ভুল বোঝাবুঝি দূর করে নিজেদের মাঝে সমঝোতা করেন। কিন্তু ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু অনলাইন পোর্টালে নিউজ করা হয়, ‘ছাত্রলীগ’ বা ‘ছাত্রলীগকর্মী’ ক্ষমা চেয়েছে। যা সত্য ঘটনার সাথে কোনোভাবেই সংগতিপূর্ণ নয়। তারা বলেন, ‘এতে প্রতীয়মান হয় যে, আমাদের ব্যক্তিগত ভুলে সংগঠনকে দায় দেয়া হয়েছে।’

তারা আরো বলেন, ‘আমরা সবাই ব্যক্তিগতভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছি এবং উভয়পক্ষ সমঝোতার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করেছি। কারণ আমরা ছাত্রলীগের নির্দেশে এ কাজ করিনি। এমনকি ছাত্রলীগের প্রতিনিধি হিসেবে দুঃখ প্রকাশ করিনি। সুতরাং সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে বলতে চাই, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য আমরা ব্যক্তিগতভাবে লজ্জিত। আমাদের ব্যক্তিগত ভুলের জন্য কোনোভাবেই সংগঠনকে জড়ানো ঠিক হবে না।’

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার জিয়াউর রহমান হলের একজন শিক্ষার্থীকে পুলিশে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারধরের শিকার হন ছাত্র অধিকার পরিষদ এবং জসিমউদদীন হল ও এফ রহমান হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী। এতে ছাত্র অধিকার পরিষদের দু’নেতা আহত হয়।নয়া দিহন্ত

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *