টঙ্গীবাড়ী-মাওয়া সড়কে প্রতিনিয়ত যানজটের

তুষার আহাম্মেদ – টঙ্গীবাড়ী-মাওয়া সড়কে প্রতিনিয়ত যানজটের চিত্র দেখা যায়। উপজেলার বালিগাঁও দীর্ঘলাইন ধরে যানজট সৃষ্টি হতে দেখা গেছে, এতে ভোগান্তিতে পড়েছে কয়েক হাজার মানুষ। টঙ্গীবাড়ী-মাওয়া সড়কে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। উপজেলার বালিগাঁও বাজারে প্রায়সময়ই এমন চিত্র দেখা যায়, তবে বর্তমানে রাস্তার সংস্কার কাজ চলমান থাকায় যানজটের পরিমানটা অতিমাত্রায় দেখা গেছে। এছাড়া ইট সিমেন্ট এর ট্রাক ও বাজারের পণ্যবাহী ট্রাক গুলো রাস্তা দখল করে মালামাল উঠা নামা করায় বেশি যানজটের সৃষ্টি হয় বলে মনে করছেন অনেকে। দিন যত যায় এই সড়কের যানজট যেন ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই ব্যস্ততম সড়কে টঙ্গীবাড়ী, মুন্সিগঞ্জ সদর ও লৌহজং উপজেলার মানুষদের মাওয়া হয়ে ঢাকা যাওয়া আশা করতে হয়। এই যানজটের কারনে ঘন্টার পর ঘন্টা ভোগান্তিতে পড়তে হয় যাত্রীদের।
গতকাল রবিবার উপজেলার বালিগাঁও গিয়ে দেখা যায়, বালিগাঁও বটতলা হতে লৌহজং উপজেলার খলাপাড়া পর্যন্ত দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার এক পাশে সংস্কার কাজ চলছে। ওপর পাশে গাড়ির দীর্ঘলাইন বেঁধে আছে। এতে আটকে আছে শতাধিক যানবাহন। সংশ্লিষ্টরা জানান, পণ্যবাহী ট্রাক চালদের অসচেতনতা, যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং করে মালামাল উঠানামা করা এবং ছোট ছোট যানবাহন, অটো, মিশুক, নছিমন চালকরা ড্রাইভিং লাইসেন্স ও দক্ষতা ছাড়াই যত্রতত্র গাড়ী চালিয়ে যাচ্ছে। এসব প্রশিক্ষণহীন অদক্ষ চালকদের কারনে এমন যানজট লেগে আছে।
মাওয়া গামী একযাত্রী শহিদুল ইসলাম বলেন, আমার মা অসুস্থ্য তাকে দেখতে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছি। দীর্ঘ এক ঘন্টা যাবত এখানে আটকে আছি। সবসময়ই এই পথে কমবেশি জামে আটকে থাকতে হয়। এখানে ট্রাফিক পুলিশ থাকলে যানজট অনেকাংশে কমে যেতো।
স্থানীয় বাসিন্দা অনিক জানান, এই সড়কে প্রতিদিন কয়েক হাজার গাড়ি চলাচল করে। প্রতিদিনই যানবাহনের দীর্ঘলাইন দেখা যায়। কিন্তু যানজট নিরসনে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়না।
এবিষয়ে বালিগাঁও বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর মোল্লা বলেন, রাস্তার সংস্কার কাজ চলমান থাকায় যানজটের পরিমানটা একটু বেশি দেখা যাচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের সাথে কথা হয়েছে, তারা বলেছে যানজট নিরসনে ট্রাফিকের ব্যবস্থা করা হবে।
দ্রুব কনস্ট্রাকশন এর ম্যানেজার আলম জানান, বালিগাঁও বাজারের যানজট নিরসনে আমাদের পক্ষ থেকে অস্থায়ী ৪জন ট্রাফিক রাখা হয়েছে কিন্তু স্থানীয় অটো, মিশুক চালকরা তাদের কথা শুনছেনা। এলোপাতাড়ি গাড়ি চালানোর ফলে এমন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।
নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও টঙ্গীবাড়ী উপজেলা শাখার সভাপতি এম. জামাল হোসেন মন্ডল বলেন, যানজট নিরসনে গাড়ি চালক ও পথচারীদের সচেতনতা প্রয়োজন। টঙ্গীবাড়ী-মাওয়া একটি ব্যস্ততম সড়ক। এছাড়াও উপজেলার বেতকা মোরেও প্রায় সময় এমন যানজট দেখা যায়। মুন্সিগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের সাথে কথা হয়েছে, ট্রাফিক পুলিশ স্বল্প সংখ্যক হওয়ায় এই এলাকায় ট্রাফিকের আওতায় আনা সম্ভব হচ্ছেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *