দেশ চালাতে গেলে মানুষের সমর্থন লাগে, সরকার এবার নতুন খেলার আয়োজন করছে —– সাইফুল হক

স্টাফ: বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও গণতন্ত্র মঞ্চের অন্যতম নেতা সাইফুল হক বলেছেন- “সরকার কোন ভাবে দেশ চালাতে পারছেন না, দেশ চালেতে পুরোপুরি ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। দেশ চালাতে গেলে মানুষের সমর্থন লাগে। এ সরকারের পিছনে মানুষের কোন সমর্থন নাই। এ সরকার মানুষের ভোটে নির্বাচিত না। তিনি বলেন, ২০১৪ একতরফা নির্বাচন করেছে। পৃথিবীর কোন দেশে সংসদের অর্ধেকের বেশী আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নজিরবিহীন নির্বাচন নাই। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে দুনিয়ার বুকে নজিরবিহীন ঘটনা। আগের দিন রাতে ৩০-৬০ শতাংশ ব্যালট পেপার সরকার দলীয়দের মার্কায় ভরে রেখাছে।
তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিদেশ সফরে বলছেন – তার আওয়ামীলীগ সরকার নাকি ভোটে বিশ্বাস করে, তারা নাকি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে, তারা নাকি ভোটের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসেছে! ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পেরেছে? পারেনি।
তিনি বলেন- সরকার ক্ষমতায় থাকতে এখন নতুন খেলার আয়োজন করছে। ইলেকট্রনিকস ভোটার মেসিন(ইভিএম)। জনগন মনে করে ইভিএম ভোট কারচুপির ভোটের একটা বাক্স। সরকার ১৫০ আসনে ইভিএম এ ভোট গ্রহণ করতে চায়। তারা আগেই ১৫০ আসন তাদের নিশ্চিত করতে চায়। তারা জানে ২০১৪ সালের একতরফা ও ২০১৮ সালে দিনের ভোট রাতে করে নির্বাচনের খেলা খেলা যাবে না। তাই এবার নতুন খেলা ইভিএম।
সাইফুল হক বলেন, জনগণ মনে করে, শেখ হাসিনাকে রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। তাই নির্বাচনের আগে তাকে পদত্যাগ করতে হবে, পদত্যাগের পর বিরোধী দলগুলির সাথে আলাপ-আলোচনা করে নির্বাচনকালীন অন্তর্বতীকালীন তদারকি সরকার গঠন করতে হবে। তারা জনগণের একটা বিশ্বাসযোগ্য বির্বাচনের জমিন তৈরি করে দিবে। সারা দেশের জনগণের এটা ন্যায্য দাবী। আর এই দাবীতে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি সহ ৭ টি দল মিলে গণতন্ত্র মঞ্চ গঠন করেছে। সরকার সেখানেও হামলা চালাচ্ছে।
তিনি বলেন, সরকার মহামারীর রাশিয়া-ইউক্রন যুদ্ধের অজুহাত দিয়ে তাদের এখানে যে চুরি-দূর্নীতি, জালিয়াতি, ব্যাংকের টাকার লুটপাট, দেশের টাকা বিদেশে পাচার করার সমস্ত দূর্নীতি লুটপাট ঢাকতে এই অজুহাত দেখাচ্ছেন। আর একটি জবরদস্তিমূলক প্রতারণাপূর্ণ  নির্বাচনের কোন অবকাশ নেই।
এই সমেলনের মধ্য দিয়ে আন্দোলনে জিততে রাজপথে ঐক্যবদ্ধ গণসংগ্রাম জোরদার করার ডাক।
শুক্রবার(৭ অক্টোবর) বিকেলে মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের পশ্চিম মুক্তারপুর আইডিয়াল টেক্সটাইল সংলগ্ন এলাকায় আয়োজিত  বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি মুন্সীগঞ্জ জেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
পার্টির মুন্সীগঞ্জ জেলা কমিটির সম্পাদক শেখ মোঃ শিমুল এর সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত থেকে আরো বক্তব্য রাখেন শ্রমজীবী নারী মৈত্রী কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নারীনেত্রী কমরেড বহ্নিশিখা জামালী, বিপ্লবী শ্রমিক সংহতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কমরেড আবু হাসান টিপু, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড  রাশিদা বেগম, সংহতি সাংস্কৃতিক সংসদ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কমরেড এ্যাপোলো জামালী, গন অধিকার পরিষদ মুন্সীগঞ্জ জেলা যুগ্ন আহ্বায়ক মোঃ মুনছুর  আহমেদ, নাগরিক ঐক্য মুন্সীগঞ্জ জেলা শাখা আহবায়ক আবু তালেব দেওয়ান। বিপ্লবী শ্রমিক সংহতির মুন্সীগঞ্জ জেলা আহ্বায়ক মোঃ মারুফ। এছাড়াও বিপ্লবী শ্রমিক সংহতির নেতা সজিব,  বিপ্লবী ছাত্র সংহতির সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ সৌরভ, ছাত্র নেতা শেখ ফরিদ পলক, মোঃ অনিক সহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলন সঞ্চাপলা করেন কমরেড নাসির হোসেন।
এর আগে জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন সাইফুল হক ও পার্টির পতাকা উত্তোলন করেন শেখ মোঃ শিমুল । ও পার্টির বিভিন্ন কর্মকান্ড প্রজেক্টের মাধ্যমে আলোকচিত্র প্রদর্শন করা করা হয়।
পার্টির নেতাকর্মী সহ বিভিন্ন স্থান থেকে অসংখ্য মানুষ সম্মেলন স্থলে জরো হয়।
সন্ধ্যায় সঙ্গীতানুষ্ঠান ও পরে মুন্সীগঞ্জ হিরণ-কিরন থিয়েটার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক নাটক “মৃত্তিকার ফুল” মঞ্চস্থ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *