নীলফামারীতে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সাংবাদিক রাশেদুজ্জামান সুমন তপন দাস

স্টাফ: নীলফামারীতে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সাংবাদিক রাশেদুজ্জামান সুমন তপন দাস নীলফামারী প্রতিনিধি নীলফামারীর জলঢাকায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জনাব হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের মৃত্যু বার্ষিকী চলাকালীন সময় মারামারির ছবি তুলতে গিয়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছে দৈনিক মানবকন্ঠ পত্রিকার জলঢাকা উপজেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক রাশেদুজ্জামান সুমন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা জাতীয় পার্টির অফিসে ঘটনাটি ঘটে। সরজমিনে গিয়ে ও প্রতক্ষদর্শী কয়েকজনের সাথে কথা হলে তারা জানান প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জনাব হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুবার্ষিকী অনুষ্ঠানে জলঢাকা উপজেলার নবনির্বাচিত জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক জনাব সাইদার রহমান বুলুর উপর আকস্মিক ভাবে আক্রমণ করে পরাজিত সাধারন সম্পাদক দুলাল হোসেন , এসময়। সাধারন সম্পাদক সাইদার রহমানের ওপর হামলার বিশেষ মুহুতের ছবি তুলতে গিয়ে সন্ত্রাসী দুলাল হোসেনের হামলার শিকার হন। এসময় সাংবাদিক রাশেদুজ্জামান এর মাথা ফেটে প্রচুর রক্ত খরন হয়। এবং গুরুতর আহত হয়ে মাটিয়ে লুটিয়ে পড়েন , পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত অন্য সাংবাদিকরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে যায়। পরে উন্নত চিকিৎসারর জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। হামলার শিকার সাংবাদিক রাশেদুজ্জামান এর সাথে কথা হলে তিনি জানান অনুষ্ঠান চলাকালীন সময় হঠাৎ করে মারামারি শুরু হয় আর এসময় সাধারণ সম্পাদক সাইদার রহমানেরর ওপর হামলার বিশেষ মুহুতের ছবি তুলতে গেলে সন্ত্রাসী দুলাল তখন আমার উপর আক্রমণ করে , জোরে আঘাত করার কারনে আমার মাথা ফেটে যায়। এদিকে জলঢাকা পৌরসভার জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম প্রিন্স জানান সম্প্রীতি জলঢাকা উপজেলা ও পৌরসভার কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । আর সেই সম্মেলন এ উপজেলা সাধারণ পদে পরাজিত হন দুলাল হোসেন সেই কারনে গতকালের ঐ অনুষ্ঠান এ হামলা করেন তিনি । সাংবাদিক সুমনের ওপর হামলার ও অনুষ্ঠান চলাকালীন সময় মারামারির বিষয়ে জেলা জাতীয় পার্টিরর সদস্য সচিব সাজ্জাদ পারভেজ বলেন অনুষ্ঠান চলাকালীন সময় এমন ঘটনায় আমরা লজ্জিত বিশেষ করে অনুষ্ঠান চলাকালীন সময় সাংবাদিকের ওপর হামলার কারনে । এটা কোন ভাবে মানা যায় না তবে আমরা বিষয়টি দলীয়ভাবে দেখবো। এদিকে সাংবাদিকেরর ওপর হামলাকারী সন্ত্রাসী দুলালের সাথে মুঠো ফোনে ও বাসায় গিয়ে কথা বলার জন্য একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও কথা বলা যায়নি এবিষয়ে জলঢাকা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) ফিরোজ কবির বলেন ঘটনার কথা শুনেছি তবে এখনো কোন অভিযোগ আসেনি অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *