মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান পদ্মার ভয়াবহ ভাঙন রোধে এলাকাবাসীর

কাজী আনসার : পদ্মার ভয়াবহ ভাঙন রোধে ও স্থায়ী সমাধানসহ ভাঙন আক্রান্তদের সার্বিক দুর্ভোগ নিরসন ও বসতভিটা,ফসলি জমি রক্ষার দাবীতে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নবাসী মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাংলাবাজার শিক্ষার্থী সংসদের উদ্যোগে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করেন। এ সময় বাংলাবাজার ইউনিয়নের নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থরা ভাঙন এলাকার সরদারকান্দি,শম্ভু হালদারকান্দি, মহেশপুরশান্তিনগর,বাংলাজার নদীর পাড়,ভূ-তারচর ইসলামপুর ও পাশ্ববর্তী এলাকার চলমান নদীভাঙন রোধে কার্যকর ভূমিকা গ্রহণের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি দাবী জানান। মানববন্ধনে এ সময় বক্তব্য রাখেন বাংলাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন পীর,বাংলাবাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইসমাইল সরকার, ,সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোহসিন, মুন্সীগঞ্জ সম্মেলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সুজন হায়দার জনি,মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর সোহেল রানা রানু, সাত্তার মুন্সী, মুহাম্মদ সাইফুর রহমান টিটু, শাহআলম প্রমুখ। এদিকে মানববন্ধন শেষে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসী মুন্সীগঞ্জের জেলা

প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। মানববন্ধনে এ ব্যাপারে বাংলাবাজার শিক্ষার্থী সংসদের সভাপতি এইচআর শাহরিয়ার হাবিব বলেন ২০০ শতাংশ জমি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।, আমরা নদী ভাঙ্গন কবলিত ইউনিয়নবাদী, ১৯৭১ সাল হতে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত তিন বার ব্যাপক নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়ে কিছু ফসলি জমি ব্যতিত পুরো ইউনিয়নটি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছিলো। দীর্ঘ ২৭ বছর বছরের নাগরিক চেষ্ঠার নতুন করে গ্রাম বস্তভিটা পুর্নগঠনের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসী লাভ করে। দুঃখের বিষয় যে, আবারো সেই ভাঙ্গন জনমনে উদ্ধেগ উৎকন্ঠার সৃষ্টি করেছে। ৭০ ভাগ বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমানে নদী ভাঙন৭০ ভাগ বিলীন হয়ে গেছে । ইতিমধ্যে প্রায় ১ থেকে দেড় হাজার ঘরবাড়ি নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে। বর্তমানে আমরা নদী ভাঙনে চরম আশঙ্কায় রয়েছি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *