মুন্সীগঞ্জে অটো-মিশুক চালক শিশুরা, বাড়ছে দূর্ঘটনা, যানজট

স্টাফ: মুন্সীগঞ্জে অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে শিশু গাড়ি চালকের সংখ্যা। শিশু শ্রম আইন লঙ্ঘনের পাশাপাশি বাড়ছে দূর্ঘটনা ও সৃষ্টি হচ্ছে দূর্ঘটনার সম্ভবনা বাড়ছে যানজট, জীবন নাশের সম্ভবনা। এমনিতে মুন্সীগঞ্জে অবৈধ অটোরিকশা- মিশুক অত্যাধিক বেশি এবং এসব গাড়ির চালকদের অদক্ষতার কারনে দূর্ঘটনা ও যানজটের সম্মুখীন সাধারন মানুষ। সেই সাথে যুক্ত হয়েছে শিশু চালকের মত ভয়ানক ও বিপদজনক বিষয়। শিশু চালকের কারনে বাড়ছে যাত্রী ও শিশু চালকের নিজের জীবনের ঝুঁকি ও বাড়ছে যানজট। ইদানিং মুন্সীগঞ্জের প্রায় সকল সড়কেই শিশু চালকের সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। কোন নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করেই শিশুদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে অবৈধ অটো-মিশুক গাড়ি। মুনাফা লোভী অটো-মিশুকের মালিক শিশুদের কাছে অটো-মিশুক তুলে দিচ্ছে নির্ধিধায়। কিছু সংখ্যক শিশু আর্থিক অনটনের কারনে গাড়ি চালনার মত ঝুকিপূর্ন কাজ করতে বাধ্য হচ্ছে সেটা ভিন্ন কথা। যেখানে প্রাপ্ত বয়স্ক চালকরাই অটোরিকশা ও মিশুক চালাতে হিমশিম খায়। প্রাপ্ত বয়স্ক চালকরাই কোন ট্রাফিক নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা করে না, জানে না ট্রাফিক নিয়ম- কানুন। সেখানে শিশু চালকদের কাছে ভাল কিছু আশা করা বোকামি। দূর্ঘটনা এড়াতে ও দূর্ঘটনার প্রবনতা কমাতে এবং যানজট নিরসনে এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি।

এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি তানভির হাসান জানান, শিশু শ্রম ও শিশু চালক বিষয়টি অত্যন্ত হতাশা ও বিপদজনক। এমনিতেই অটো-মিশুক অবৈধ, সরকারিভাবে শিশু শ্রম নিষিদ্ধি। এসব শিশু চালকের কারনে চালক ও যাত্রীদের জীবনের ঝুকি বাড়ছে। প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের উচিৎ এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া।

এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর ট্রাফিক পুলিশের টিআই বজলুর রহমান জানান, শিশু চালক রোধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মানবিক কারনে অনেক সময় আমাদের ছাড় দিতে হয়। শিশু চালক রোধে সকল ধরনের প্রচেষ্ঠা অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার ( ট্রাফিক ) রাসেল মনির জানান, শিশু চালকের বিষয়ে আমাদের কোন কিছু করার নেই। অটো-মিশক পৌরসভা থেকে অনুমোদন দেয়। শিশু চালক রোধে যদি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ যদি কোন পদক্ষেপ নেয়, প্রশাসনের কোন সাহায্য চায়। তাহলে আমরা তাদের সহযোগিতা করবো।

শিশু চালকের সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি যেসব শিশু আর্থিক অনটন ও পারিবারিক কারনে অটো-মিশুক চালাতে বাধ্য হচ্ছে তাদের পূর্নবাসন, আর্থিক সাহায্য ও উপযোগী কাজের ব্যবস্থা করা জুরুরী। শিশু গাড়ি চালকের সমস্যা ও দূর্ঘটনা নিরসনে প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিগণ গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করবে এমনটাই প্রত্যাশা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *