মুন্সীগঞ্জে ঐতিহাসিক ১৪ই ফেব্রুয়ারিতে মেয়েকে যৌন হয়রানির অভিযোগে পিতা আটক

তুষার আহাম্মেদ – মুন্সীগঞ্জে নিজ মেয়েকে যৌন হয়রানী করার অভিযোগে বাবাকে আটক করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত বাবা হোসেন মাঝি (৩২) তার স্ত্রীর দায়ের কোপে আহত হয়ে বর্তমানে পুলিশ পাহাড়ায় সিরাজদিখান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্র হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এলাকাবাসী ও মেয়ের মায়ের তথ্য সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন সময় এই বদমাইশ পিতা তার মেয়েকে কুক-কুক খেলায় লিপ্ত হওয়ার জন্য অভিশপ্ত ভাবে প্রায়ই মেয়ের স্পর্শ কাতার জায়গায় হাত দিয়ে নাড়া-চাড়া করত। ঘড়ে কেউ না থাকলে মেয়ের পিতা প্রায়ই অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ায় জন্য মেয়ের কাপড়-চোপর খোলার জন্য চেষ্টা করত। এ নিয়ে প্রায়ই ফ্যামিলিতে অশান্তি,ঝগড়া লেগেই থাকত।

আজ রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভোরে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের কাজিরবাগ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরিবারটির বাড়ি বরিশাল জেলার মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায়। বর্তমানে তারা মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের কাজীরবাগ গ্রামের হাফেজ খানের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

জানাগেছে, অভিযুক্ত হোসেন মাঝি বেশ কিছু দিন যাবৎ তার নিজ মেয়ের শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে য়ৌন হয়রানি করে আসছিলো। সর্বশেষ আজ ভোরে মেয়ের উপর যৌন হয়রানি করতে গেলে মেয়ের চিৎকারে মা রাশেদা বেগম ছুটে আসেন এবং দা দিয়ে স্বামীর মাথায় কোপ দেন। তার মা এক পর্যায়ে স্বামীর যৌনাঙ্গ চিব দিয়ে নিজের মেয়েকে রক্ষা করেন।

খবর পেয়ে মালখানগর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবু সাইদ আহত হোসেন মাঝিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঘটনার শিকার কিশোরীর মা রাশেদা বেগম জানান, বেশ কিছু দিন যাবৎ আমার স্বামী তার মেয়েকে যৌন হয়রানি করতো। মেয়ে আমাকে সব খুলে বলে।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন। অভিযুক্ত বাবা হোসেন মাঝি বর্তমানে পুলিশ পাহাড়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *