মুন্সীগঞ্জে তামাক নিয়ন্ত্রন আইন সংশোধনে সংবাদ সম্মেলন

কাজী বিপ্লব হাসান: তাকাম নিয়ন্ত্রন আইন সংশোধনে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ব্যবসায়ীদের অযৌক্তিক লাইসেন্স গ্রহনের প্রস্তাবনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুন্সীগঞ্জ জেলা শাখার জাতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্প সমিতি। এই উপলক্ষে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেছে জাতীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্প সমিতি। আজ ৩১ শে জুলাই ২০২২ আনন্দ কমিউনিটি সেন্টারে সকাল ১১ ঘটিকায় উক্ত সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৮৪ সাল থেকে সারা দেশের হাজারো নারী-পুরুষ উদ্বোক্তাদের সাথে নিয়ে এই ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্প খাতকে সমৃদ্ধ ও অর্থবহ করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্পের উন্নয়নে সফলতা অর্জন করেছে। দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতেও এই ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্পের ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু বর্তমানে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ভবিষ্যত সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ একটি আইন প্রনয়নের কাজে নাসিবকে (ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্প) অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি। তাই নি¤œ আয়ের খুচরা বিক্রেতা জনগোষ্ঠির দৈনন্দিন জীবিকা নির্বাহে হুমকি স্বরূপ বলে মনে হচ্ছে। এ জন্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি আয়ের কুটির শিল্প

প্রস্তুতকারীর কিছু ধারা উপ-ধারা প্রকাশ করছি। তা হচ্ছে:-
১। বাধ্যতামূলক লাইসেন্স গ্রহন ব্যতিত তামাক ও তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় নিষিদ্ধকরন।
২। ধুমপান এলাকার ব্যবস্থা বিলুপ্তিকরন। ৩। খুচরা শলাকা বিক্রয় নিষিদ্ধকরন।
৪। পাবলিকপ্লেসের সংজ্ঞায় চায়ের দোকান অন্তর্ভূক্তকরন। ৫। বিক্রয়স্থলে তামাকজাত পণ্য প্রদর্শন নিষিদ্ধকরন।
৬। ফেরি করে তামাকজাত পণ্য বিক্রি নিষিদ্ধকরন। ৭। সার্বিক ভাবে জরিমানার পরিমান মাত্রাতিরিক্ত বৃদ্ধিকরন এবং যেকোনো প্রকার অভিযোগের ক্ষেত্রে ফৌজদারি কার্যবিধির অন্তর্ভূক্তি করন।
এই ধরনের প্রতিকূল আইন বাস্তবায়িত হলে প্রায় ১৫ লক্ষ প্রান্তিক ক্ষুদ্র ব্যবাসায়ী যারা এই খাতে জড়িত এবং সকল খুচরা বিক্রেতা ও তাদের বর্গ মিলে ৭০ থেকে ৮০ লক্ষ নি¤œ আয়ের মানুষের দৈনিক জীবিকার উপর ভীষন ভাবে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। তাছাড়া এই ধরনের আইনের অপপ্রয়োগে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীক জনগোষ্ঠি হয়রানির শিকার হবে। এতে এই জনগোষ্ঠি হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। তাই উল্লেখিত বিষয়ে বিবেচনাপূর্বক প্রান্তিক ক্ষুদ্র ব্যবাসায়ীদের স্বার্থ বিবেচনা করে সরকারের এইরূপ আইন প্রনয়ন না করার জন্য গনমাধ্যম কর্মিদের দ্বারা স্বাস্থ্য মন্ত্রীর প্রতি বিনীত আবেদন জানাচ্ছে এই ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়িক জনগোষ্ঠি। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামীলিগের যুগ্ম সম্পাদক এড. সোহানা তাহমিনা। জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি মুন্সীগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ আরফিন এর সভাপতিত্বে উক্ত সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন মুন্সীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি শহীদ-ই-হাসান তুহিন, মুন্সীগঞ্জ আইনজীবী সমিতির প্রক্তন সাধারন সম্পাদক শাহিন মো: আমান উল্লাহ, মুন্সীগঞ্জ পৌর ব্যবসায়ী সমিতির আহবায়ক আলহাজ¦ শাহজাহান গাজী, মুন্সীগঞ্জ মহিলা আওয়ামীলিগের সাধারণ সম্পাদক এড. সামসুর নাহার শিল্পী, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রাক্তন সভাপতি কাজী সাব্বির আহমেদ দীপু, প্রাক্তন সাধারন সম্পাদক ভবতোষ চৌধুুরি নূপুর ও মামুনুর রশিদ খোকা, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি গোলজার হোসেন, মুন্সীগঞ্জ জেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী বিপ্লব হাসান, সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম জামাল হোসেন মন্ডল, প্রথম আলো সাংবাদিক ফয়সাল আহম্মেদ, আর টিভি সাংবাদিক শেখ শিমুল, একাত্তর টিভি সাংবাদিক জসিম দেওয়ান, মুন্সীগঞ্জ রিপোটার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক মো: রুবেল, বাংলাদেশ বেতারের নজরুল হাসান ছোটন সহ আরো অনেক সাংবাদিকবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *