মুন্সীগঞ্জে মাইকে ঘোষণা দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা, ৭ পুলিশ আহত

তুষার আহাম্মেদ – মুন্সীগঞ্জে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল কারখানায় অভিযান চালানোর সময় মাইকে ঘোষণা দিয়ে পুলিশের ওপরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশের ৭ সদস্য আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

গত রোববার (১৭ এপ্রিল) রাত ১২টার দিকে সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের মালিপাথর এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ইমরানের কারখানায় অভিযান পরিচালনার সময় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

অভিযোগ উঠেছে, উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ইমরান হোসেনের কারেন্ট জাল ফ্যাক্টরিতে অভিযানে গেলে তিনি এলাকায় ডাকাত পড়েছে বলে মাইকে ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাত ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই নজরুল ইসলাম ও এসআই ফরিদসহ পুলিশ সদস্যদের একটি গ্রুপ ইমরানের কারখানায় অভিযান চালায়। এ সময় ইমরান ও তার ভাই সম্রাট মাইকিং করে ডাকাতের সংবাদ প্রচার করেন। ঘোষণা পর ৪-৫ শতাধিক লোক জড়ো হয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে পুলিশের ৭ সদস্য আহত হয়। পরে পুলিশ ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

 এ ঘটনায় আহতরা হলেন- পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম, ফরিদুজ্জামান, মো. খসরু, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জাকির হোসেন, পরিদর্শক (অপারেশন) মোজাম্মেল হক ও কনস্টেবল রায়হান হোসেন। তাদের মধ্যে নজরুল, ফরিদুজ্জামন ও রায়হানকে গুরুতর অবস্থায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে আহত সদস্যদের দেখতে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ছুটে আসেন পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ড. শৈবাল বসাক জানান, ৬ জন পুলিশ সদস্য আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। সবাইকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। একজনের অবস্থা গুরুতর। তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজারবাগ পুলিশ লাইন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাজিব খান জানান, নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে মালিপাথর এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ। জানা যায়, স্থানীয় ইউপি সদস্য ইমরান ও তার ভাই সম্রাট কারেন্ট জাল তৈরি করছে। ফ্যাক্টরিতে অভিযান চালায়। পুলিশ ওই ফ্যাক্টরিতে অভিযান শুরু করে।

এ সময় মসজিদের মাইকে এলাকায় ডাকাত পড়েছে প্রচার করলে লোকজন পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে পুলিশের ৭ জন আহত হয়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে ১১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ । পরে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া এ বিষয় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *