০৪/০৭/২০২২ তারিখে একজন ভোক্তা জনাব মোঃ রজ্জব আলীর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে মুন্সীগঞ্জ পঞ্চসারের পান্না টেলিকম কে ১০,০০০/- জরিমানা করা হয়। জনাব মোঃ রজ্জব আলী মুন্সীগঞ্জের বাংলাবাজার ইউনিয়নের একজন রবি- এয়ারটেলের ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ী ও মোবাইল সিম বিক্রেতা। তিনি জানুয়ারি মাস থেকে লক্ষ্য করেন তাকে না জানিয়ে তার রবি -এয়ারটেলের ফ্লেক্সিলোডের সিম থেকে হঠাৎ হঠাৎ টাকা কেটে নেয়া হচ্ছে। তিনি বিষয়টি মুন্সীগঞ্জের রবি-এয়ারটেলের ডিস্ট্রিবিউটর পান্না টেলিকম কে জানান। পান্না টেলিকম থেকে তিনি তার টাকা উত্তোলনের স্টেটমেন্ট নিয়ে দেখেন জানুয়ারি মাস থেকে শুরু করে কয়েকদফায় তার ফ্লেক্সিলোডের সিম থেকে টাকা কেটে রাখা হয়েছে যা তাকে জানানো হয়নি। পান্না টেলিকমের মালিক তাকে এই বিষয়ে কোন সদুত্তর প্রদান করতে পারেননি। এমতাবস্থায় মোঃ রজ্জব আলী সংক্ষুব্ধ হয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মুন্সীগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে প্রমাণ সহকারে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মুন্সীগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে অভিযোগ টি আমলে নেয়া হয় এবং গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করা হয় এবং উভয় পক্ষের উপস্থিতি তে একাধিক শুনানি করা হয়। তদন্ত সাপেক্ষে এবং বিভিন্ন ডকুমেন্টস পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে, পান্না টেলিকমের সেলস রিপ্রেজেনটেটিভ জনাব মনির মাদার সিম ব্যবহার করে অসত উদ্দেশ্যে ডিলার বা ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ী মোঃ রজ্জব আলীর টাকা মাসে মাসে তুলে নিচ্ছিলেন। নতুন সিম এক্টিভিশনের বোনাস টাকা সিমে ঢুকেছে এই কথা বলে জনাব মনির ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ীর কাছ থেকে প্রথমে ক্যাশ টাকা উত্তোলন করতেন, এরপর অফিসে এসে অফিসিয়াল প্রক্রিয়া অনুসরণ করে মাদার সিম ব্যবহার করে একই টাকা আবার অই ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ীর সিম থেকে তুলে নিতেন। এরফলে ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ী আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিলেন। শুনানি তে পান্না টেলিকমের মালিকের উপস্থিতিতে তাদের সেলস রিপ্রেজেনটেটিভ জনাব মনির তার অপকর্মের কথাটি স্বীকার করে নেন। এমতাবস্থায় পান্না টেলিকমের মালিক কে ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ীর কেটে নেয়া অতিরিক্ত টাকা ফেরত দিয়ে সমন্বয় করতে নির্দেশ দেয়া হয় এবং এই ধরনের অবহেলা ও দায়িত্বহীনতা মূলক কাজের জন্য ১০,০০০/- জরিমানা করা হয় এবং ভবিষ্যতে এধরণের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয় । পান্না টেলিকমের মালিক তাতক্ষণিকভাবে জরিমানার অর্থ পরিশোধ করেছেন এবং জানান, তারা কিছু টাকা ফেরত দিয়ে সমন্বয় করেছেন এবং বাকি টাকাও দ্রুত সমন্বয় করবেন। আইন অনুযায়ী অভিযোগকারী ভোক্তাকে আদায়কৃত জরিমানার ২৫% অর্থ প্রদান করা হবে। “লংঘিত হলে ভোক্তা অধিকার, অভিযোগ করলেই পাবেন প্রতিকার “

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *