রাঙ্গামাটিতে কৃষি উপকরণ ও দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ

স্টাফ রাঙ্গামাটিতে কৃষি উপকরণ ও দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার —–দীপংকর তালুকদার এমপি উচ্চপ্রু মারমা রাঙ্গামাটি। দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে বর্তমান সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় কৃষকদের সুবিধার্থে সেচ পাম্প ও পাওয়ার টিলার বিতরণ করছে সরকার। আর প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ট নেতৃত্বে কারণে দূর্গম এলাকাগুলোতে উন্নয়নের ছোয়া পৌঁছে যাচ্ছে। আর পাহাড়ে সম্প্রীতি বজায় থাকলে উন্নয়ন শিখরে আমরা পৌঁছে যাবো বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি। বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা পরিষদ এনেক্স ভবনে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে এবং জেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় জেলার কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে পাওয়ার টিলার, পাওয়ার পাম্প, ফলজ ও বনজ চারা এবং দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য হাজী মোঃ মুছা মাতব্বর, সদস্য অংসুইছাইন চৌধুরী, সবির কুমার চাকমা, রেমলিয়ানা পাংখোয়া, প্রিয় নন্দ চাকমা, ঝর্ণা খীসা, বিপুল ত্রিপুরা, নিউচিং মারমা, ইলিপন চাকমা, দিপ্তীময় তালুকদার, মোঃ আব্দুর রহিম, মোসাম্মৎ আছমা বেগম, নির্বাহী প্রকৌশলী বিরল বড়ুয়া প্রমূখ। রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু দেশের কৃষকদের জীবনমান উন্নয়নে বিভিন্ন ভাবে কাজ করে গেছেন, আর তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বাবার আদর্শে পথ চলছে। দেশের কৃষকদের উন্নয়নসহ দুস্থ, অসহায় মানুষদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করছে। তিনি সবসময় দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে বলেই আজ বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ। এমপি আরও বলেন, আমরা যখন পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের বিরুদ্ধে কথা বলি, তখনি একটি গোষ্ঠী আমাদের বিরুদ্ধে কথা বলে। মানুষকে আমরা সচেতন করেছি, তারা এখন চাঁদা দিতে চায় না। টানা পনের বছর মিলে গত ২০ বছর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিলো। ক্ষমতায় থাকাকালীন বাংলার মানুষ উন্নয়নের সুফল ভোগ করছে। তিনি আরো বলেন, করোনার কঠিন সময়ে সারাবিশ্বের অর্থনীতি ধস নেমেছে। কিন্তু জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের দেশের অর্থনীতির আরও উন্নতি ঘটেছে। ভারত-পাকিস্তানের অর্থনীতিকে আমরা অনেক আগে পিছনে ফেলেছি। গ্যাসের দাম, জাহাজের ভাড়া, কয়লার দাম বেড়েছে। ইউক্রেণ রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে এ সমস্যা হয়েছে। বিশ্বের অনেক দেশের তুলনায় আমাদের দেশে দ্রব্যমূল্য অনেক কম। অনুষ্ঠানে ৯০ জন দুস্থ মহিলাকে ৯০টি সেলাই মেশিন, ১৮জন কৃষককে ১৮টি পাওয়ার টিলার, ৪৫জন কৃষককে ৪৫টি পাওয়ার পাম্প, ১২ হাজার ফলজ ও বনজ চারা এবং রাঙ্গামাটি কলেজ গেইটে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪জন ব্যবসায়ীকে জনপ্রতি ১০ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়। এছাড়া পরিষদের পক্ষ থেকে কাপ্তাই উপজেলাধীন ৩নং চিৎমরম ইউনিয়নে সন্ত্রাসীর হাতে নিহত আওয়ামী লীগ দুই পরিবারের মাঝে পরিবার প্রতি ৩লক্ষ টাকা করে মোট ৬ লক্ষ টাকা অনুদান প্রদান করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *